| প্রচ্ছদ

আফগানিস্তান মাঠে, হোটেলে বাংলাদেশ দল

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ১৯ বার

অন্যান্য অঞ্চলের চেয়ে চট্টগ্রাম কিছুটা আলাদা। এখানে বৃষ্টি শুরু হলে থামতে চায় না। দু'দণ্ড থামলেও কালো মেঘ ঘনিয়ে আসে। গতকাল থেকে গুমড়া মুখো আকাশ ম্যাচের বাকিটা হতে দেবে কি-না বলা মুশকিল। তবে বাংলাদেশ সময় সকাল ১১টার দিকে বৃষ্টি থামে। আকাশে কালো মেঘ তখনও ছিল। পরেই রোদ হেসেছে। কিউরেটর ছাতা ছাড়াই সোমবার প্রথমবার উইকেট পরিদর্শনে নামেন।

আফগানিস্তান ক্রিকেট দল আগেই স্টেডিয়ামে এসেছে। রশিদ খান ছাতা মাথায় দিয়ে, হাতে এক পেয়ালা চা কিংবা কফি নিয়ে মাঠ দর্শনে নামেন। তবে বাংলাদেশ দল তখনও টিম হোটেলে ছিল। বৃষ্টি সাময়িক বন্ধ হওয়ায় সাকিববাহিনীকে মাঠে আসার জন্য বলা হয়েছে। মাঠে আসতে তাদের সময় দেওয়া হয়েছে আধ ঘণ্টা।

এর আগে চতুর্থ দিন তিনবার চট্টগ্রামে বৃষ্টি বাগড়া দেয়। পুরো দিন খেলানও সম্ভব হয়নি। শেষ বিকেলে বৃষ্টির কারণে নির্ধারিত সময়ের আগে দিনের খেলা শেষ করে দেওয়া হয়। তবে ক্ষতি পুষিয়ে নিতে শেষ দিন সকাল নয়টা ৩০ মিনিটে খেলা শুরুর সময় দেওয়া হয়। কিন্তু চট্টগ্রামে রাতেই অনেক বৃষ্টি হয়েছে। তাই সকালে নির্ধারিত সময়ে খেলা হবে না জানাই ছিল।

এরপর সকাল থেকেই চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম বৃষ্টিতে ভাসতে থাকে। বাংলাদেশ দলের শেষ দিন জয়ের জন্য ২৬২ রান দরকার। হাতে আছে ৪ উইকেট। দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ ৬ উইকেট হারিয়ে ১৩৬ রান করেছে। আফগানরা ৩৯৮ রানের লক্ষ্য দেয় বাংলাদেশকে। ম্যাচ শুরু হলেও হাতে যে সময় থাকবে তাতে ওই রান তোলা কঠিন। সাকিবদের তাই লক্ষ্য থাকবে ম্যাচ ড্র করার দিকে। সকালের সেশন যেহেতু ভেসেই যাচ্ছে। খেলা শুরু হলে শেষ দুই সেশন টিকে থাকার লড়াই নিতে হবে সাকিব-সৌম্যদের।

মন্তব্য