| প্রচ্ছদ

ব্রিটিশ পার্লামেন্ট স্থগিতকে বেআইনি বলল আদালত

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ২১ বার

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের পার্লামেন্ট স্থগিতের সিদ্ধান্তকে বেআইনি বলে রায় দিয়েছে স্কটল্যান্ডের সর্বোচ্চ আদালত।

২৮ আগস্ট রানির অনুমোদন অনুযায়ী সেপ্টেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে ১৪ অক্টোবর পর্যন্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সঙ্গে চুক্তিবিহীন বিচ্ছেদ কার্যকরের পথ সুগম করতে সংসদ অধিবেশন স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেন বরিস জনসন। তারই ধারাবাহিকতায় গত মঙ্গলবার পাঁচ সপ্তাহের জন্য ব্রিটিশ পার্লামেন্ট স্থগিত করা হয়েছে।

কিন্তু চুক্তি ছাড়া ব্রেক্সিটের পক্ষে নয় জনসনের বিরোধীরা। এতে আছেন সরকারি ও বিরোধী উভয় দলের এমপিরা।

বিবিসি জানায়, জনসনের বিরোধীদের পক্ষে স্কটল্যান্ডের সর্বোচ্চ আদালতের তিন বিচারকের একটি প্যানেল ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর পার্লামেন্টের স্থগিতের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে।

বিচারকদের ভাষ্য, ব্রেক্সিটকে কেন্দ্র করে সরকারের ওপর প্রভাব বিস্তার করা থেকে বিরত রাখতে পার্লামেন্ট স্থগিত করা হয়েছে। এর মাধ্যমে পার্লামেন্টকে কোণঠাসা করা হয়েছে।  এতে যা অনুসরণ করা হয়েছে তা বেআইনি।  

মঙ্গলবার দিনের শুরুতে পার্লামেন্ট স্থগিত করেন প্রধানমন্ত্রী জনসন। তার এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে স্কটল্যান্ডের সর্বোচ্চ আদালতে যান স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টির ৭৮ জন এমপি। দলটির এমপি জোয়ানা চেরির ভাষ্য, আমাদের সাংবিধানিক দৃষ্টিভঙ্গি প্রকাশ করা থেকে বিরত রাখতে পার্লামেন্ট স্থগিত করা হয়েছে।

চেরি বলেন, অননুমোদিত ব্রেক্সিট বাস্তবায়ন করতে গিয়ে আমরা যাতে ভুল-ত্রুটি ধরতে না পারি তার ষড়যন্ত্র করছেন বরিস জনসন, জ্যাকব রিজ-মগসহ অন্যান্যরা।  

আদালতে আবেদনকারী ব্রেক্সিট বিরোধীদের মতে, আদালতের এই সিদ্ধান্তের মানে হচ্ছে, পার্লামেন্ট আর স্থগিত নেই।

এদিকে ব্রিটিশ সরকার জানিয়েছে, স্কটিশ আদালতের এই রায়ের বিরুদ্ধে লন্ডনের সুপ্রিম কোর্টে আপিল করবেন তারা।

মন্তব্য