| প্রচ্ছদ

রোহিঙ্গা নিধনে জড়িত শতাধিক ব্যক্তিকে চিহ্নিত করল জাতিসংঘ

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৩২ বার। প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ।

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা নিধনের সঙ্গে জড়িত শতাধিক ব্যক্তির একটি তালিকা চূড়ান্ত করেছে জাতিসংঘের তথ্যানুসন্ধানী দল।

এই অনুসন্ধানী দল এর আগে ২০১৮ সালে প্রাথমিকভাবে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ছয়জন উচ্চপদস্থ জেনারেলকে চিহ্নিত করেছিল। নতুন তালিকায় সেনাবাহিনী, পুলিশ, সীমান্তরক্ষী এবং কারারক্ষীসহ অন্যান্য নিরাপত্তা বাহিনীর অধিনায়ক ও সদস্য এবং বেসামরিক কর্তৃপক্ষের জেলা, রাজ্য এবং ইউনিয়ন পর্যায়ের প্রতিনিধিরাও রয়েছেন।

রাষ্ট্রীয় নয়, এমন সশস্ত্র গোষ্ঠীর সদস্যরাও তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন।

ইন্দোনেশিয়ার মারজুক দারুসমান, শ্রীলঙ্কার রাধিকা কুমারাস্বামী এবং অস্ট্রেলিয়ার ক্রিস্টোফার সিডোটির সমন্বয়ে এ অনুসন্ধানী দল গঠিত।

৯ সেপ্টেম্বর শুরু হওয়া জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদের অধিবেশনে পেশ করা তথ্যানুসন্ধানী দলের চূড়ান্ত প্রতিবেদনে এ তালিকার কথা বলা হয়। প্রতিবেদনে গণহত্যা এবং মানবতাবিরোধী অপরাধ নিবারণে ব্যর্থতার দায় মিয়ানমার রাষ্ট্রের ওপর বর্তায় বলে মন্তব্য করা হয়েছে।

অপরাধীদের তালিকা প্রকাশ করা হয়নি। এটি মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনার সংরক্ষণ করবে।

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান, মিয়ানমার ইকোনমিক হোল্ডিংস লিমিটেড এবং মিয়ানমার ইকোনমিক করপোরেশনের নাম উল্লেখ করে প্রতিবেদনে বলা হয়, এগুলোও তার সহযোগী প্রতিষ্ঠানগুলোর মাধ্যমে দেশটির সেনাবাহিনী যা আয় করে, তা দেশটির মানবাধিকার সংকটে ভূমিকা রাখছে।

বাংলাদেশে নতুন করে আসা রোহিঙ্গাদের ভাষ্য উদ্ধৃত করে প্রতিবেদনে বলা হয়, চলাচলে নিষেধাজ্ঞা, চাষাবাদ, মাছ ধরা, জ্বালানি কাঠ সংগ্রহের মতো জীবিকা নির্ধারণের কাজে বাধা পাওয়ার কারণে তারা সেখানে থাকতে পারছে না।

মন্তব্য