| প্রচ্ছদ

ধুনটে ধর্ষণ মামলার আসামী গ্রেফতার

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে ৪০ বার। প্রকাশ: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ।

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় তারেক ইসলাম (২০) নামের এক ধর্ষণ মামলার আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত তারেক উপজেলার আড়কাটিয়া গ্রামের দক্ষিণ পাড়া গুচ্ছ গ্রাম এলাকার মোক্তার ইসলামের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, আড়কাটিয়া গ্রামের দক্ষিণ পাড়া গুচ্ছ গ্রাম এলাকার জনৈক কৃষকের ১৮ বছর বয়সী যুবতী মেয়ে একজন স্বামী পরিত্যাক্তা। স্বামীর সাথে বনিবনা না হওয়ায় ২ বছর আগে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। একই এলাকার মোক্তার ইসলামের ছেলে তারেক ইসলাম বিভিন্ন সময় ওই স্বামী পরিত্যাক্তা যুবতি মেয়েকে নানা সময় নানা ভাবে প্রেম ভালোবাসার প্রস্তাবসহ কু-প্রস্তাব দিতো। বিষয়টি তারেকের পরিবারকে জানানো হলে তারা বিষয়টি কর্ণপাত করে নাই। এরূপ অবস্থা চলাকালে ১৩ আগষ্ট ২০১৯ তারিখ দুপুরে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে ওই যুবতির ঘরে ঢুকে জোরপুর্বক ধর্ষণ করে তারেক। বিষয়টি ওই যুবতি তার পরিবারের লোকদের জানাতে চাইলে তারেক ইসলাম তাকে বিবাহ করার প্রতিশ্রুতি দেয় এবং লোকদের জানাতে নিষেধ করে। বিবাহের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সে একাধীকবার মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। পরবর্তিতে মেয়েটি তাকে বিবাহ করার কথা বললে সে কালক্ষেপন করতে থাকে। গত ৩০ আগষ্ট ২০১৯ তারেক ইসলাম পুনরায় শারিরিক সম্পর্ক স্থাপনের উদ্দেশ্যে ওই মেয়ের ঘড়ে প্রবেশ করলে বিষয়টি ওই মেয়ের মায়ের নজরে আসে। এ বিষয়ে মেয়ের পরিবার তারেক ইসলামের পরিবারের কাছে বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে যায়। প্রস্তাবে তারেকের পরিবার আশি হাজার টাকা যৌতুক দাবি করে। পরে বিষয়টি সম্পর্কে স্থানীয় লোকজন অবগত হওয়ার পর শালিশী বৈঠকে আপোষ মিমাংশা করার চেষ্টা করে স্থানীয়রা। কিন্তু বৈঠকে আসামী ও তার পরিবার উপস্থিত না হওয়ায় আপোষ নিষ্পত্তি করা সম্ভব হয়নি। ওই মেয়ে তারেক ইসলামের বিরুদ্ধে ১৩ সেপ্টেম্বার ২০১৯ তারিখ দুপুরে ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের আওতায় ৯(১) ধারায় মামলা দায়ের করে। মামালার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই প্রদীপ কুমার বর্মণ আসামী তারেক ইসলামকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করেছে।

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইসমাইল হোসেন জানান, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের আওতায় ধর্ষন মামলার আসামী হিসেবে তারেক ইসলাকে গ্রেফতার করে শুক্রবার সকালে আদালতে পাঠানো হয়েছে। 
 

মন্তব্য