| প্রচ্ছদ

বগুড়ায় ইয়াবাসহ ননদ-ভাবী ও এক যুবক আটক

দোস্ত আউয়াল
পঠিত হয়েছে ৫০৩ বার। প্রকাশ: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ।

বগুড়ায় ৩০০ পিস ইয়াবাসহ দুই মহিলা ও এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হলো- শাহাজাহানপুর থানার সাবরুল গ্রামের জালাল মন্ডলের স্ত্রী রোকসানা আক্তার (৩২) বর্ষা, একই এলাকার সাগর তালুকদারের স্ত্রী সাবরিনা তালুকদার ঝিনুক (২৩) ও সিরাজগঞ্জ জেলার কাজীপুর থানার রফিকুল ইসলামের ছেলে আরিফুর রহমান শুভ (২২)। 
বগুড়া সদর থানার পুলিশ শনিবার রাত সাড়ে ১১ টায় ইয়াকুবিয়ার মোড় থেকে শুভকে এবং রোববার দুপুর আড়াইটার সময় জেলাখানার মোড় থেকে বর্ষা ও ঝিনুকে আটক করে।

পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার রাতে ইয়াকুবিয়া মোড় থেকে শুভকে ৫০ পিস ইয়াবা সহ আটক করা হয়৷ পরে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে 
জানায়, তার সহযোগি বর্ষার কাছ থেকে ইয়াবা নিয়ে সে ভ্রাম্যমাণ ভাবে বিক্রি করে। এরপর কৌশলে শুভর মাধ্যমে বর্ষাকে ফোন দিয়ে ৩০০ পিস ইয়াবা নিয়ে আসতে বলা হয়। পরদিন রোববার সকাল থেকে বর্ষা ইয়াবার চালান আনার কথা বলে একসময় বেলা ২ টায় জেলখানার মোড়ে আসতে বলে। আসামি শুভ সহ সেখানে পুলিশের একটি দল মহিলা পুলিশ সদস্য নিয়ে সাদা পোশাকে অপেক্ষা করতে থাকে৷ পরে বেলা আড়াইটার দিকে শুভ বর্ষাকে দেখিয়ে দিলে তার গতি রোধ করে আসামি ঝিনুক সহ তাকে আটক করা হয়। ওই সময় নারী পুলিশ সদস্য উভয়কে তল্লাশি করে ২৫০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে। 

পুলিশ আরও জানায়, আটক ওই দুই মহিলা সম্পর্কে ননদ-ভাবি। তাদের পুরো পরিবার বিভিন্ন ধরনের অপরাধের সাথে জড়িত। ঝিনুকের স্বামী সাগর মাদক, অপহরণ এবং অস্ত্র মামলার আসামি।  বর্তমানে সে একটি মামলায় জেলহাজতে রয়েছে। এছাড়াও বর্ষার বিরুদ্ধে যুবকদের ফাঁদে ফেলে অর্থ আদায়ের অভিযোগ আছে।

বগুড়া সদর থানার ওসি এসএম বদিউজ্জামান 'পুণ্ড্রকথাকে'  বলেন, আটক যুুবক শুভ একজন ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার তারপরেও সে মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পরে। অপর দিকে আটক দুই নারী পারিবারিক ভাবে মাদক ব্যবসায় জড়িত। শুভর বিরুদ্ধে প্রচলিত মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দিয়ে আদালাতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।  বর্ষা ও ঝিনুকের বিরুদ্ধে প্রচলিত মাদকদ্রব্য আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে। 

মন্তব্য