| প্রচ্ছদ

যা খেলে ভালো হবে গ্যাস্ট্রিক

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪৬ বার। প্রকাশ: ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ।

গ্যাস্ট্রিক এখন ঘরোয়া রোগ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ছোট-বড় সবাই এখন এই সমস্যার ভুগছেন। বাইরের ভাজাপোড়া, ফাস্টফুড, দাওয়াত, পার্টিতে মসলাযুক্ত অতিরিক্ত খাবার খাওয়া, খালি পেটে থাকার কারণে বেশির ভাগ সময় গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা হতে পারে।

কখনোই পেট খালি রাখা যাবে না। এছাড়া ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া নিজের ইচ্ছায় ওষুধ খাওয়া যাবে না। নিয়ম মেনে খাবার খাওয়া, পেট খালি না রাখা, ভাজাপোড়া খাওয়া থেকে বিরত থাকাসহ আরও বেশকিছু বিষয় অবশ্যই মেনে চলতে হবে।

গ্যাস্ট্রিক কি?

সাধারণত নাভির ওপরে পেটে ব্যথা হবে। খালি পেটে কিংবা ভোররাতের দিকে ব্যথা তীব্র হয়।গলা-বুক-পেট জ্বলে, টক ঢেঁকুর ওঠে। ঝাল-তেল-মসলাজাতীয় খাবারে ঝামেলা বেশি করে।

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় খেতে পারেন চাল কুমড়া। এটি পুষ্টিকর একটি সবজি। ভিটামিন, খনিজ, শর্করা ও ফাইবার থাকায় এটি স্বাস্থ্যের জন্য দারুণ উপকারী।

এই কুমড়া সাধারণত ঘরের চালে হয় বলে একে বলে চাল কুমড়া। আসুন জেনে নেই চাল কুমড়ার স্বাস্থ্য উপকারিতা।

১. চাল কুমড়ায় অ্যান্টি মাইক্রোবিয়াল উপাদান রয়েছে। যা পেট এবং অন্ত্রের ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া দূর করে। এই সবজি ইনফেকশন বা আলসার রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করে ও এসিডিটি দূর করে।

২. এটি মস্তিষ্কের নার্ভ ঠাণ্ডা রাখে। এছাড়া চাল কুমড়ার রস যক্ষা রোগ প্রতিরোধ করে ও রক্তপাত বন্ধ করতে সাহায্য করে।

৩. শরীরের অতিরিক্ত ওজন ও চর্বি কমাতে খুব ভালো কাজ করে। অতিরিক্ত ক্যালরি যুক্ত খাবারের বিকল্প হিসেবেও এই সবজি খেতে পারেন।

৪. ত্বক ও চুলের যত্নে চাল কুমড়ার রস ব্যবহার করতে পারেন। নিয়মিত এই রস চুল ও ত্বকে মাখলে বয়সের ছাপ প্রতিরোধ করবে।

৫. চাল কুমড়ার বীজ গ্যাস্ট্রিক রোগ ভালো করে।এছাড়া কোষ্ঠকাঠিন্য, পেট ফাঁপা এবং প্রস্রাবের সমস্যা কমাতে চাল কুমড়ার খুবই উপকারি।

মন্তব্য