| প্রচ্ছদ

যুবলীগ থেকে খালেদ মাহমুদকে বহিষ্কার

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৩৬ বার। প্রকাশ: ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ।

অনৈতিক কাজ ও শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। সংগঠনটির চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর সাংগঠনিক সিদ্ধান্তে শুক্রবার তাকে বহিষ্কার করা হয়।

যুবলীগের মিডিয়া সমন্বয়ক মিজানুল ইসলাম মিজু এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গত বুধবার সন্ধ্যায় যুবলীগ নেতা খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে তার গুলশান-২ এর ৫৯ নম্বর রোডের ৫ নম্বর বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার বাসা থেকে অবৈধ পিস্তল, গুলি, শটগান ও ৫৮৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

অপরদিকে ফকিরাপুলের ইয়ংমেন্স ক্লাবে ক্যাসিনোতে অভিযান চালায় র‌্যাব। এই ক্যাসিনোর সভাপতিও খালেদ মাহমুদ। ক্যাসিনোর ভেতর থেকে তরুণীসহ ১৪২ জনকে আটক করা হয় এবং নগদ ২০ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়। এছাড়া বিপুল পরিমাণ ইয়াবা, মদ ও বিয়ার জব্দ করা হয়।

পুলিশ সূত্র জানায়, খালেদের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় অস্ত্র, মাদক ও মুদ্রা পাচার আইনে তিনটি এবং মতিঝিল থানায় মাদক আইনে আরেকটি মামলা হয়েছে। এছাড়া ওয়ান্ডারার্স ক্লাব থেকে আটক তিনজনের বিরুদ্ধে মতিঝিল থানায় পৃথক মামলা হয়েছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে।

বুধবার আটকের পর বৃহস্পতিবার রাতে খালেদ মাহমুদকে আদালতে উপস্থাপন করলে অস্ত্র মামলায় চারদিন এবং মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে করা মামলায় তার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। পরে ওইদিন রাতেই মামলা দুটি মহানগর গোয়েন্দা পুলিশে (ডিবি, উত্তর) স্থানান্তর করা হয়।

গত ১৪ সেপ্টেম্বর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে 'মনস্টার' সম্বোধন করে তাদের পদ থেকে বাদ দেওয়ার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সভায় যুবলীগের কিছু নেতার কর্মকাণ্ডে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

মন্তব্য