| প্রচ্ছদ

ক্যাসিনোতে সংশ্লিষ্ট বিদেশিদের পালাতে সহায়তায় দুই পুলিশ বরখাস্ত

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৩৪ বার। প্রকাশ: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ।

রাজধানীর মতিঝিলের ইয়ংমেনস, ওয়ান্ডারার্স ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়াচক্র ক্লাবে র‌্যাবের অভিযানের পর ক্যাসিনোগুলোতে সংশ্লিষ্ট বিদেশিদের পালাতে সহায়তা করার অভিযোগে দুই পুলিশ সদস্যকে বরখাস্ত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার শফিকুল ইসলাম।  খবর যুগান্তর অনলাইন 

বরখাস্তরা হলেন রমনা থানার কনস্টেবল দীপঙ্কর চাকমা ও ডিএমপির প্ররক্ষা বিভাগের এএসআই গোলাম হোসেন মিঠু।

এর আগে রাজধানীর সেগুন বাগিচার একটি ভবনের সিসি ক্যামেরায় ধারণ হওয়া ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর বিদেশিদের পালাতে সহায়তার অভিযোগ ওঠে পুলিশের বিরুদ্ধে। পরে ভিডিও দেখে কনস্টেবল দীপঙ্কর চাকমা ও এএসআই গোলাম হোসেন মিঠুকে শনাক্ত করা হয়।

ওই ভিডিও ফুটেজ দেখেই চিহ্নিত দুই পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানান ডিএমপি কমিশনার শফিকুল।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর ফকিরেরপুল ইয়ংমেনস ক্লাব, ওয়ান্ডারার্স ক্লাব ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়াচক্রে ক্যাসিনো থাকার অভিযোগে সেখানে অভিযান চালায় র‌্যাব। পরে সেখান থেকে বিপুল পরিমাণ নগদ টাকা, মাদকদ্রব্য, অস্ত্র ও জুয়া খেলার সরঞ্জামাদি জব্দ করে র‌্যাব। এরপরই জানা যায় এসব ক্যাসিনো নিয়ন্ত্রণ করেন যুবলীগের বিভিন্ন নেতা। আর এসব ক্যাসিনো পরিচালনায় কাজ করতেন বিদেশিরা।

অভিযানের ওই রাতেই সেগুনবাগিচার ভবন সামিট হাসান লজের সিসি ক্যামেরায় একটি ভিডিও ফুটেজ ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এতে দেখা যায় কয়েকজন ওই ভবনটির ভেতরে প্রবেশ করছেন- যাদের মধ্যে একজনের হাতে ওয়াকিটকি ছিল। যেই ভবনটিতে বেশ কয়েকজন নেপালি থাকতেন।

পরে ওয়াকিটকি হাতে ওই ব্যক্তি পুলিশ সদস্য বলে সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হলেও বিষয়টি গত মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে নাকচ করে দেন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।

মন্তব্য