| প্রচ্ছদ

দুর্নীতি, লুটপাট আর ধ্বংসযজ্ঞের গ্যাস রপ্তানিমুখী পিএসসি বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন

প্রেস রিলিজ
পঠিত হয়েছে ৩০ বার। প্রকাশ: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ।

দুর্নীতি, লুটপাট আর ধ্বংসযজ্ঞের গ্যাস রপ্তানিমুখী পিএসসি-২০১৯ ও সুন্দরবন বিনাশী সকল প্রকল্প বাতিল এবং জ্বালানি ও বিদ্যুৎ সংকট সমাধানে জাতীয় কমিটির বিকল্প মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের দাবিতে বগুড়ায় মানববন্ধন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকাল ১১ টায় শহরের সাতমাথায় তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির  বগুড়া জেলার উদ্যোগে ওই কর্মসূচী পালিত হয়। 

মানববন্ধন চলাকালে সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় কমিটির বগুড়া জেলার সদস্য সচিব সাইফুজ্জামান টুটুল। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাসদ বগুড়া জেলা আহবায়ক সাইফুল ইসলাম পল্টু, প্রবীন রাজনীতিবিদ মাহফুজুল হক দুলু, গণসংহতি আন্দোলন বগুড়া জেলা নির্বাহী সমন্বয়ক আব্দুর রশীদ, সিপিবি জেলা নেতা সন্তোষ পাল, বাসদ (মার্কসবাদী) নেতা আমিনুল ইসলাম। সমাবেশ সঞ্চালনা করেন যুব ইউনিয়ন বগুড়া জেলা সা:সম্পাদক শাহনেওয়াজ খান পাপ্পু।


সমাবেশে বক্তারা বলেন, জনমত উপেক্ষা করে সরকার আবারো মন্ত্রিপরিষদের সভায় গ্যাস রপ্তানীর সুযোগ রেখে অফসোর মডেল পিএসসি অনুমোদন করেছে। মডেল পিএসসি ২০০৮ এ রপ্তানীর সুযোগ রাখায় দেশবাসী হরতালসহ আন্দোলন কর্মসূচীর মাধ্যমে বাতিল করতে সরকারকে বাধ্য করেছিল। কিন্তু সরকার যে তার অবস্থান থেকে সরে আসেনি  এরই প্রমাণ নতুন পিএসসি-২০১৯। একদিকে সরকার মুষ্টিমেয় ব্যবসায়ীদের স্বার্থে গ্যাস সংকটের কথা বলে বেশি দামে এলএনজি আমদানি করছে অন্যদিকে সমুদ্রের গ্যাস রপ্তানির সিদ্ধান্ত নিচ্ছে বিদেশী কোম্পানি ও দেশীয় কমিশনভোগীদের স্বার্থে। স্থলভাগ ও সমুদ্রের তেল-গ্যাস অনুসন্ধান ও উত্তোলনে  বিদেশি কোম্পানি নয়, জাতীয় সংস্থার সক্ষমতা বাড়ানোর দাবী দেশবাসী দীর্ঘদিন থেকে জানিয়ে আসলেও সরকার তাতে সাড়া দিচ্ছে না। নেতৃবৃন্দ আবিলম্বে রপ্তানির সুযোগ রেখে বাড়তি দামে গ্যাস ক্রয়ের মডেল পিএসিসি-২০১৯ বাতিল ও দেশের উন্নয়নে তেল-গ্যাস ব্যবহারের নিশ্চয়তার বিধান এবং শতভাগ মালিকনা নিশ্চিত করে স্থল ও সাগরের গ্যাস অনুসন্ধান ও উত্তোলনের জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানান এবং সুন্দরবন বিনাশী সকল প্রকল্প বাতিল করার দাবি জানান। সেই সাথে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ সংকট সমাধানে জাতীয় কমিটির বিকল্প মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের দাবি জানান।

মন্তব্য