| প্রচ্ছদ

নুসরাত হত্যা মামলা: আজ যুক্তি খণ্ডন শেষ হলেই রায়ের তারিখ ঘোষণা

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ২১ বার। প্রকাশ: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ।

ফেনীর আলোচিত মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে মারার হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় রাষ্ট্রপক্ষ ও বাদীপক্ষের আইনজীবীদের যুক্তিখন্ডন শুরু হয়েছে।

এর আগে গত ১১ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার আসামি,বাদী ও রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীদের যুক্তিতর্ক শেষ হয়।

পরবর্তীতে সোমবার (৩০ সেপ্টেম্বর) পর্যন্ত যুক্তিখণ্ডন চলে। আজ যুক্তি খণ্ডন শেষ হলেই রায় ঘোষণার তারিখ ঠিক করবেন আদালত।

সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টায় কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে মামলার অভিযুক্ত ১৫ আসামিকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদের আদালতে হাজির করা হয়। অপর আসামি কামরুন নাহার মনি নবজাতকের মা হওয়ায় তাকে আদালতে তোলা হয়নি। 

এ মামলার মোট ৯২ জন সাক্ষীর মধ্যে ৮৭ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে। গত ২৭ জুন থেকে এ মামলার সাক্ষ্য কার্যক্রম শুরু হয়। শুরুর পর থেকে প্রতি কর্মদিবসে আদালত তাদের জবানবন্দি রেকর্ড করছেন।

প্রসঙ্গত, সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে নুসরাতকে যৌন হয়রানি করার অভিযোগ এনে মামলা করেন নুসরাতের মা শিরিন আক্তার। মামলাটি তুলে না নেওয়ায় গত ৬ এপ্রিল পরীক্ষার হল থেকে নুসরাতকে কৌশলে ডেকে পাশের ভবনের তিন তলার ছাদে নিয়ে যায় সিরাজ উদ দৌলার সহযোগীরা। সেখানে তারা নুসরাতের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়। পাঁচদিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ে গত ১০ এপ্রিল রাত সাড়ে ৯টায় ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে মৃত্যুবরণ করেন নুসরাত। 

এ ঘটনায় মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাকে প্রধান আসামি করে ৮ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ৪/৫ জনকে আসামি করে নুসরাতের ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান ৮ এপ্রিল সোনাগাজী মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এদের মধ্যে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাসহ ১২ জন হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দিয়েছে।

মন্তব্য