| প্রচ্ছদ

সর্বোচ্চ রান করেও জ্যামাইকাকে জেতাতে পারলেন না লিটন

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ২৯ বার। প্রকাশ: ০৪ অক্টোবর ২০১৯ ।

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (সিপিএল) নিজেদের শেষ ম্যাচ খেলতে নেমেছিল জ্যামাইকা তালাওয়াশ। একাদশে সুযোগ পেয়েছিলেন লিটন দাস। যথাসাধ্য চেষ্টা করলেন তিনি। তবে দলীয় সর্বোচ্চ রান করেও জেতাতে পারলেন না উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান। গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্সের কাছে ৭৭ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরেছে তার দল জ্যামাইকা।

বৃহস্পতিবার গায়ানার প্রভিডেন্স স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং বেছে নেয় অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স। তবে ব্যাট করতে নেমে জ্যামাইকা বোলারদের তোপে পড়ে তারা। স্কোরবোর্ডে ৮ রান তুলতেই ৪ উইকেট খোয়ায় গায়ানা।

এমতাবস্থায় দলকে খাদের কিনার থেকে উদ্ধার করেন অধিনায়ক শোয়েব মালিক। তাকে যোগ্য সহযোদ্ধার সমর্থন দেন শেরফানে রাদারফোর্ড। তারা দুজনে মিলে গড়েন ৮২ রানের জুটি। ৪৩ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় ঝড়ো ৪৫ রান করে রাদারফোর্ড ফিরলেও থেকে যান শোয়েব।

রীতিমতো স্ট্রোকের ফুলঝুরি ছোটান তিনি। শেষ পযর্ন্ত ৪৫ বলে ৫ চার ও ২ ছক্কায় ৭৩ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন মালিক। তাদের ব্যাটে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৫৬ রানের পুঁজি গড়ে গায়ানা।

১৫৭ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে জ্যামাইকা। রানের খাতা খোলার আগেই বিদায় নেন ক্রিস গেইল। এরপর জুটি গড়ার চেষ্টা করেন গ্লেন ফিলিপস ও চ্যাডউইক ওয়াল্টন। তবে তাদের লড়াইটা ছিল যৎসামান্য।

ইমরান তাহিরের বলে ওয়াল্টন বিদায় নিলে ব্যাটিংয়ে নামেন লিটন দাস। ফিলিপসের সঙ্গে ২৮ রানের জুটি গড়ে প্রতিরোধের প্রয়াস দেখান তিনি। এবার থেমে যান ফিলিপস। ২১ রান করে তিনি বিদায় নিলে গ্রিফিথের সঙ্গে জুটি গড়েন লিটন।

তবে সঙ্গ দিতে পারেননি তিনি। দ্রুত বিদায় নেন গ্রিফিথও। এর কিছুক্ষণ পর থামে লিটনের লড়াইও। ফেরার আগে তিনি করেন ২৫ বলে ২ চারে দলীয় সর্বোচ্চ ২১ রান। এতে কক্ষচ্যুত হয় জ্যামাইকা। পরের ব্যাটসম্যানরা দ্রুত যাওয়া-আসার প্রতিযোগিতায় লিপ্ত থাকেন। ফলে মাত্র ৭৯ রানেই গুটিয়ে যায় তারা।

মন্তব্য