| প্রচ্ছদ

সন্তানকে বাঁচাতে গিয়ে ‘নরকের জলপ্রপাতে’ মরল ৬ হাতি

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ২৫ বার। প্রকাশ: ০৬ অক্টোবর ২০১৯ ।

সন্তানের প্রতি ভালোবাসা রয়েছে পৃথিবীর সব প্রাণীরই। আর সেই দৃষ্টান্ত দেখা গেল এবার থাইল্যান্ডের দক্ষিণাঞ্চলে একটি জাতীয় পার্কে।

জলপ্রপাতের খাঁদে পড়ে যাওয়া শাবককে বাঁচাতে প্রাণ দিল মাসহ আরও ৫ হাতি!

ওই জলপ্রপাতটি স্থানীয়ভাবে পরিচিত ‘নরকের জলপ্রপাত’ নামে পরিচিত।

শনিবার (৫ অক্টোবর) থাইল্যান্ডের দক্ষিণাঞ্চলে খাও ইয়া জাতীয় পার্কের একটি খরস্রোতা জলপ্রপাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

সেখানে পাল থেকে ছুটে বাচ্চাকে বাঁচাতে গিয়ে খরস্রোতা এক জলপ্রপাতের খাঁদে পড়ে ৬ হাতির মৃত্যু হয়।

মর্মান্তিক সেই ঘটনার বর্ণনা দিয়ে খাও ইয়া পার্ক কর্তৃপক্ষ জানায়, শনিবার একটি বাচ্চা হাতি জলপ্রপাত থেকে নিচে পড়ে গেলে অন্য হাতিগুলো তাকে বাঁচাতে যায়। এতে একে একে অন্য পাঁচ হাতিরও মৃত্যু হয়। এ সময় আরও দুটি হাতি ছিটকে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় গিয়ে পড়ে।

ওই দুই হাতি এখনও বেঁচে আছে জানিয়ে তারা জানান, বন্য ও প্রাণী সংরক্ষণ অধিদফতরের প্রতিনিধিরা ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন। হাতি দুটিকে উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

বিবিসি জানিয়েছে, তিন ঘণ্টা উদ্ধারকার্য চালানোর পর তিন বছর বয়সী একটি হাতির মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এরপরই তার খুব কাছে পড়ে থাকা অন্য পাঁচ হাতির মৃতদেহ খুঁজে পাওয়া যায়।

বিবিসি আরও জানায়, বিপজ্জনক ওই জলপ্রপাতে এর আগেও এ ধরনের দুর্ঘটনা ঘটেছে। ১৯৯২ সালের পর থেকে ওই জলপ্রপাতের খাঁদে পড়ে আটটি হাতির মৃত্যু হয়েছে।

থাইল্যান্ডের সংস্কৃতিতে ও ঐতিয্যে হাতি বেশ গুরুত্ব বহন করে। দেশটির অধিবাসীরা এ ঘটনায় শোকাতুর।

ইতিমধ্যে থাই ওয়াইল্ড লাইফ ফ্রেন্ডস ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা এডউইন উইক দুর্ঘনাটিকে ‘বিষাদপূর্ণ’ ঘটনা বলে মন্তব্য করেছেন।

তিনি বলেছেন , এই খাঁদ বিষয়ে আমরা কিছুই করতে পারছি না। শনিবার আমরা যা হারালাম তা পরিবারের কোনো সদস্যদের হারানোর মতোই বেদনার।

মন্তব্য