| প্রচ্ছদ

হত্যা মামলার সাজা খেটে বেরিয়েই স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ২৭ বার। প্রকাশ: ০৬ অক্টোবর ২০১৯ ।

গাইবান্ধায় আলোচিত শিশু সাদিয়া সুলতানা তৃষা হত্যা মামলার প্রধান আসামি ১৩ বছর সাজা খেটে এসে ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করেছে।

গত ১১ সেপ্টেম্বর ধর্ষণের ঘটনার পর গত শুক্রবার রাতে রাজধানীর কেরানীগঞ্জ থেকে মেহেদী হাসান মডার্নকে (৩০) গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে গতকাল রবিবার দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

২০০২ সালের ১৭ জুলাই সাদিয়া সুলতানা তৃষা হত্যার দায়ে মডার্নসহ তিনজনের মৃত্যুদণ্ড দেয় গাইবান্ধা জেলা ও দায়রা জজ আদালত। ২০০৪ সালে তারা আপিল করলে হাইকোর্টেও একই রায় বহাল থাকে। তবে ২০১২ সালের ৩ জুন আপিল বিভাগ সাজা কমিয়ে প্রত্যেককে ১৪ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দেয়। কারা নিয়মানুযায়ী ১৩ বছর জেল খেটে সম্প্রতি বের হয় মডার্ন।

সদর থানার এসআই নওশাদ আলী জানান, গত ১১ সেপ্টেম্বর বিকেলে প্রাইভেট শেষে বাড়ি ফেরার পথে মেহেদী হাসান মডার্ন ও তার সহযোগী সাব্বির হোসেন বাপ্পী স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে। পরে বোয়ালীবাজার সংলগ্ন একটি মোবাইল সার্ভিসিংয়ের দোকানে নিয়ে ধর্ষণ করে পার্শ্ববর্তী একটি সেতুর ওপর তাকে রেখে যায়।

মেয়েকে না পেয়ে পরদিন ১২ সেপ্টেম্বর সদর থানায় জিডি করেন তার মা। পরে ওইদিনই রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মোড় থেকে স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরে সে আদালতে ধর্ষণের পুরো ঘটনা খুলে বললে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন তার মা।

গাইবান্ধার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) মো. মইনুল হক জানান, স্কুলছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়েছে। ডিএনএ পরীক্ষার জন্য ঢাকায় তার পোশাক পাঠানো হয়েছে। অপর আসামি সাব্বির হোসেন বাপ্পীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য