| প্রচ্ছদ

সম্রাটের গ্রেফতারই কি ওবায়দুল কাদেরের গরম খবর?

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ২০ বার। প্রকাশ: ০৭ অক্টোবর ২০১৯ ।

গত বুধবার সচিবালয়ে সমসাময়িক বিষয়ে আলোচনাকালে সাংবাদিকদের গরম খবরের জন্য অপেক্ষায় থাকার কথা বলেছিলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সাংবাদিকরা বারবার প্রশ্ন করলেও সেই গরম খবর খোলাসা করেননি তিনি। বলেছেন, গরম খবরটা সারপ্রাইজই থাকুক।

এর চার দিন পর গ্রেফতার হলেন ঢাকার বহুল আলোচিত ক্যাসিনো সম্রাট। যার গ্রেফতার করা না করা নিয়ে দোলাচল চলছিল গত তিন সপ্তাহ ধরে। মাদক-সন্ত্রাস-চাঁদাবাজ ও ক্যাসিনোবিরোধী সরকারের শুদ্ধি অভিযান শুরু হওয়ার পর থেকেই আলোচনায় ছিলেন সম্রাট। একে একে সম্রাটের বেশ কয়েকজন সহযোগীকে গ্রেফতার করা হলেও তাকে গ্রেফতার করা হচ্ছিল না। দেশবাসী, গণমাধ্যমকর্মী ও রাজনৈতিক কর্মী সবার কেৌতুহল ছিল সম্রাটকে ঘিরে।

বুধবারের সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের উদ্দেশ করে বলেন, ‘অপেক্ষা করুন, গরম খবর আসছে।’ তবে কী সেই গরম খবর, সে বিষয়ে কিছুই স্পষ্ট করেননি মন্ত্রী। কী ধরনের খবর- সাংবাদিকরা তা জানতে চাইলে তিনি বলেন, কী ধরনের খবর, সেটা বলে দিলে তো হয় না। সময় এলেই জানতে পারবেন।

এরপর সাংবাদিকরা আবারও জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সারপ্রাইজ থাকল।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, চাঁদাবাজ, ক্যাসিনো পরিচালনাকারী ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে চলমান অভিযান আরও জোরদার হবে।

সম্রাট গোয়েন্দা নজরদারিতে রয়েছেন-আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এমন বক্তব্য বারবার দিলেও গত ১৫ দিনে তাকে ধরতে পারছিল না কিংবা ধরেনি। এ নিয়ে জনমনে সংশয় সৃষ্টি হয় সম্রাটের গ্রেফতার নিয়ে। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এবং সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও সম্রাটের গ্রেফতার প্রসঙ্গে জিজ্ঞাসা করলে কেৌশলী উত্তর দিতেন, যা সন্দেহ আরও ঘনীভূত করেন। এসব বিষয়ে গত বুধবার ওবায়দুল কাদেরকে সচিবালয়ে প্রশ্ন করেন সাংবাদিকরা। কথা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘একটু অপেক্ষা করুন, গরম খবর পাবেন। যখন জানাব তখনই বুঝবেন কী ধরনের খবর।’

ওবায়দুল কাদেরের এই ব্রেকিং নিউজের বক্তব্যে কৌতুহল সৃষ্টি হয় গণমাধ্যমকর্মীদের পাশাপাশি সচেতন মহলেও। ওবায়দুল কাদেরের গরম খবর কী সেটি নিয়ে কানাঘুষা সৃষ্টি হয়। এ নিয়ে অনেকেই নানা রকম আন্দাজ করেন। কিন্তু গরম খবরের ক্লু সম্পর্কে কেউ এখনও স্পষ্ট হতে পারেননি। তিন দিন পেরিয়ে এটি এখনও গোলক ধাঁধাঁর মতোই রয়ে যায়। জানা যায়নি গরম খবর।

ওবায়দুল কাদেরের ওই সংবাদ সম্মেলনের পর অনেকে আন্দাজ করছিলেন, ঢাকার ক্যাসিনো গডফাদার ইসমাইল হোসেন সম্রাট গ্রেফতার হচ্ছেন, এটিই ওবায়দুল কাদেরর গরম খবর। কিন্তু তিন দিন অতিবাহিত হওয়ার পরও সম্রাট গ্রেফতার গ্রেফতার না হওয়ায় সন্দেহ দানা বাধে। তবে রোববার সকালে সম্রাটকে গ্রেফতারের পর সেই অনুমান সত্যি পরিণত হয়।

সম্রাটকে গ্রেফতারের পর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আপনারা (গণমাধ্যম) যাকে (সম্রাট) গডফাদার বলছেন তাকে তো গ্রেফতার করা হয়েছে। অভিযান চলছে, চলবে। এটা কোনো দল, ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে নয়। যারা দুর্নীতি ও দুর্বৃত্তায়নের সঙ্গে জড়িত, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। এটা সরকারের ইচ্ছা। সরকার সংকল্পবদ্ধ। এ লক্ষ্য সামনে রেখে শুদ্ধি অভিযান শুরু হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘যাদের যাদের আপনারা সন্দেহ করছেন তারা তো অ্যারেস্ট হচ্ছে। আমাদের সরকারের অভিযান শুরু হয়েছে যতক্ষণ পর্যন্ত দুর্নীতির চক্র ভেঙে দিতে না পারব ততক্ষণ অভিযান চলবে।’

মন্তব্য