| প্রচ্ছদ

বগুড়ায় এক শিক্ষককে পেটালেন আরেক শিক্ষক

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে ৭৮২ বার। প্রকাশ: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ।

বগুড়ায় জাহিদুর রহমান মহিলা ডিগ্রী কলেজের শিক্ষক মিজানুর রহমানের হাতে আলমগীর কবির পলাশ নামের আরেক শিক্ষক মারধরের শিকার হয়েছেন। মঙ্গলবার বেলা ১২ টার দিকে ওই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা বগুড়া-নওগাঁ সড়ক কিছু সময়ের জন্য অবরোধ করলেও স্থানীয় কাউন্সিলর পুলিশের আশ্বাসে তারা ক্লাসে ফিরে যায়।  

প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ওই কলেজে মিজানুর রহমান ইংরেজি বিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক হলেও ৪মাস ধরে তিনি কলেজে আসেন না। পরে কলেজ প্রশাসন শিক্ষার্থীদের দিক বিবেচনা করে আলমগীর কবির পলাশ নামের এক শিক্ষককে  অতিথি শিক্ষক হিসেবে ক্লাস নেয়ার জন্য নিয়োগ দেন। আলমগীর কবির পলাশ ৩ মাস ধরে ক্লাস নিচ্ছিলেন।

মঙ্গলবার মাস পরে হঠাৎ কলেজে আসেন মিজানুর রহমান। এসেই আলমগীর কবির পলাশকে ক্লাস নিতে দেখে ক্ষুব্ধ হোন এবং ক্লাস থেকে বের হয়ে যেতে বলেন। পরে আলমগীর কবির ক্লাস থেকে বের না হলে মিজানুর রহমানসহ বরিহাগত কয়েকজন মিলে তাকে শিক্ষার্থীদের সামনেই মারধর করেন। পরে আহত অবস্থায় আলমগীর কবির পলাশকে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল  কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

আহত আলমগীর কবির পলাশ জানান, আমাকে কয়েকজন মিলে মারধর শুরু করেন। এতে মাথায় এবং কানে মারাত্মক আঘাত লাগে। কলেজ কতৃপক্ষ এই বিষয়ে আইনী পদেক্ষেপ নিবেন বলে আশা করি। 

এই বিষয়ে জাহিদুর রহমান মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মাহাবুব আলম বলেন, এক শিক্ষকের হাতে আরেক শিক্ষকের মারধরের ঘটনা লজ্জাজনক। তবে ম্যানেজিং কমিটি প্রশাসনের সাথে আলোচনা করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

বগুড়া সদর থানার ওসি এস এম বদিউজ্জামান জানান, প্রতিষ্ঠান থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য