বগুড়া প্রেসক্লাবের সভাপতির সঙ্গে পিবিআই এসপির অশোভন আচরণের নিন্দা

প্রেস বিজ্ঞপ্তি
প্রকাশ: ১০ জুলাই ২০২৪ ১২:০৯ ।
বগুড়ার খবর
পঠিত হয়েছে ৩০ বার।

পুলিশ ইনভেস্টিগেশন ব্যুরো (পিবিআই) বগুড়ার পুলিশ সুপার (এসপি) কাজী এহসানুল কবীর বগুড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি ও বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি মাহমুদুল আলম নয়নের সাথে অশোভন আচরণ করায় চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বগুড়ার সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।

বগুড়া প্রেসক্লাব, বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিইউজে) ও বগুড়া ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন যৌথভাবে ওই ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছে। এক যৌথ বিবৃতিতে সংগঠনের নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে পুলিশ সুপারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পিবিআই উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। ঘটনার সুষ্ঠু নিরসন না হলে বগুড়ার সাংবাদিক সমাজ বৃহত্তর আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করতে বাধ্য হবে।

বিবৃতিতে বগুড়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন মিন্টু, বিএফইউজে নির্বাহী পরিষদ সদস্য প্রদীপ ভট্টাচার্য্য শংকর ও এএইচএম আখতারুজ্জামান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আরিফ রেহমান, বিইউজে সভাপতি জে এম রউফ, সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান রানা, প্রেসক্লাবের সহসভাপতি আব্দুস সালাম বাবু, এসএম কাওসার, বগুড়া ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আব্দুর রহিম ও সাধারণ সম্পাদক কাওছার উল্লাহ আরিফ স্বাক্ষর করেন।

বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পিবিআই বগুড়া অফিসে একটি প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়। বগুড়া শহরের একই পরিবার থেকে নিখোঁজ ৭ সদস্যের বিষয়ে ওই প্রেস ব্রিফিংয়ের বিষয়ে বগুড়ায় কর্মরত সকল সাংবাদিককে তা অবহিত করা হয়নি। সেই তথ্য পেতে দৈনিক জনকণ্ঠ পত্রিকায় কর্মরত বগুড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহমুদুল আলম নয়ন পিবিআই এসপিকে ফোন করেন। এসময় এসপি ক্ষুব্ধ হয়ে তাঁর সাথে অশোভন আচরণ করেন এবং তাঁর সাংবাদিকতা নিয়ে প্রশ্ন তোলার পাশাপাশি সাংবাদিকদের মধ্যে গ্রুপিং আছে বলে তিনি উল্লেখ করেন। তার এ ধরণের আচরণের বিষয় অবহিত হয়ে চরম ক্ষুব্ধ হন বগুড়ার সাংবাদিক সমাজ। তাঁরা অবিলম্বে বগুড়ার পিবিআই পুলিশ সুপারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান।